মধ্যবিত্তের ঈদ !!

মধ্যবিত্তের জন্য ঈদ ব্যাপারটা সবসময় সুখকর হয় না ।গ্রামে থাকতে একটা কথা প্রতি ঈদের আগেই শুনতাম ‘ঈদ আসে না জম আসে’ । ধর্মীয় অনুষ্ঠান হলেও এর সাথে টাকা পয়সার ব্যাপারটাও জড়িত । নতুন জামা, ঈদের দিন উপলক্ষ্যে ভালো কিছু রান্না করা, পিঠা পুলি, মেহমান সবকিছূ মিলিয়ে মোটামুটি একটা খরচের বাজেট করতে হয় । আর সেই কারনেই যাদের দিন আনে দিন খাই অথবা নুন আনতে পান্থা ফুরায় অবস্থা তাদের মনে হতাশা, ক্ষোভ, অপমানের জন্ম নেয় । বাড়তি কিছু উপার্জনের জন্য প্রনান্ত চেষ্টা করতে হয় ।

ঈদের সাথে নতুন জামার সম্পর্কটা কিভাবে এসছে জানি না । তবে এখন ঈদ মানেই হলো নতুন জামা-কাপড় কিনতে হবে । যাদের প্রচুর টাকা আছে তাদের জন্য ব্যাপরটা কিছুই না বরং আনন্দের । একসাথে পরিবারের সবাই শপিং করবে এর চাইতে খুশির আর কি হতে পারে ! কিন্তু ঠিক এই ব্যাপারটাই কারো কারো জন্যে অনেক দু:খের । যেখানে পরিবারের একমাত্র উপার্জক্ষম বাবার সামন্য ইনকামে কোনমতে সংসার চলে সেখানে একসাথে সবার জন্য কেনাকাটা করা কষ্টকর । আবার সমাজে মোটামুটি সম্মানিত কেউ হলে না করে উপায় থাকে না কারন বন্ধু-বান্ধব সবার নতুন জামা থাকবে শুধু তার ছেলেমেয়ের থাকবে না, এটা কোন বাবা-মা ই চাই না ।

বাঙ্গালী মধ্যবিত্ত এমন একটা অবস্থা যেখানে পরিবারের সবাই একসাথে খুশি হতে পারে না । সবকিছুতেই তাদের ভাগাভাগি করে নিতে হয়, এমনকি সুখ দুঃখও । ঈদের সময় পরিবারের সবাইকে নতুন জামা কিনে দেয়া পরিবারের কর্তার পক্ষে সবসময় সম্ভব হয়না । হয়তো দেখা গেছে ছেলেমেয়েদের জন্য কিনতে গিয়ে নিজেদেরটা আর কেনা গেলো না । ‘তোদের খুশিতেই আমাদের খুশি’ এটা বাঙ্গালী মধ্যবিত্ত মায়েদের কমন উক্তি । মা হয়তো তার পুরনো শাড়িটি পরে সারাদিন রান্না ঘরেই কাটিয়ে দিবেন আর বাবা তার পুরনো পান্জাবিটা বের করে নামাজ পড়তে যাবেন । তারপরও তারা খুশি ছেলেমেয়েকে নতুন জামা কিনে দিতে পেরেছে । অনেকে এটাও পারে না । পরিবারের ছোট সন্তানটিকে হয়তো এই ঈদে কিনে দিয়েছে, বড় সন্তানটিকে আশা দিয়েছে আগামী ঈদে কিনে দেবে ।

নিম্নবিত্তের জন্য ঈদ আরো কষ্টের । তাদের কাছে ঈদ মানে ছেলেমেয়েদের দুঃখি চেহারার দিকে তাকিয়ে থাকার দিন, ঈদ মানে সন্তানদের মিথ্যা সান্তনা দেয়ার দিন ।

ঈদের সেমাই কেনার পর দুধ কেনার টাকা থাকে না এমন পরিবারের সংখ্যাও কম নয় । সবার বাড়িতে যখন ঈদের দিন ভালো ভালো রান্না করা তখন প্রতিদিনকার মতো ডাল-ভাত খেয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় এমন পরিবারও অসংখ্য । সমাজের অবস্থাবানরা কবে যাকাতের একটা কাপড় দিবে সেই আশায় বসে থাকা মানুষের সংখ্যা কম নয় ।

ঈদ হোক সার্বজনীন ।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s